মোট দেখেছে : 168
প্রসারিত করো ছোট করা পরবর্তীতে পড়ুন ছাপা

চট্টগ্রামবাসীর সেবায় নিজেকে উৎসর্গ করতে চাই: রেজাউল করিম

আসন্ন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী এম. রেজাউল করিম চৌধুরী বলেছেন, চট্টগ্রামের সকল উন্নয়নে এবং চট্টগ্রামবাসীর সেবায় আমি নিজেকে উৎসর্গ করতে চাই। জননেত্রী শেখ হাসিনা আমার উপর আস্থা ও বিশ্বাস রেখে যে প্রতীক দিয়েছেন তা বিজয়ী করার দায়িত্ব নগরবাসীর।


আমি নগরবাসীর ভাই বোনদের সালাম ও আদাব জানাতে এসেছি। আপনারাদের প্রতি আমার আনুগত্য, আস্থা ও মূল্যায়নকে আমি যথেষ্ট মূল্যায়ন দিই। এ লক্ষ্যেই আমারও আপনাদের প্রতি দাবি আছে। আগামী আসন্ন নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে রায় দিয়ে জাতির সম্মান রক্ষা করবেন। উন্নয়নের ধারাকে অভিষ্ট লক্ষ্যে নিতে হলে আমাদের সবাইকে এক কাতারে আসতে হবে। এ কারণে আমি আপনাদের কাছ থেকে চট্টগ্রামের উন্নয়নে প্রকল্পগুলো রাষ্ট্রীয়ভাবে স্বীকৃত হয়েছে তা আমাদের প্রত্যেকটি ভোটারের দায়বদ্ধতা আছে। আমি মনে করি, এ সত্যটাকে উপলদ্ধি করে নেত্রী আমাকে নৌকা প্রতীক দিয়েছেন। এ নৌকা জাতির স্বাধীনতা সার্ভমত্বের প্রতীক। আমি ব্যক্তির জন্য কিছু কামনা করি না, দলীয় ও জাতীয় স্বার্থে নিবেদিত প্রাণ। তাই ভোটটা আমার ব্যক্তির জন্য নয়, ভোট দেবেন জাতীয় অস্তিত্ব রক্ষার জন্য।


আজ বৃহস্পতিবার ১২ মার্চ ৯, ১০ ও ১২ নং ওয়ার্ডে গণসংযোগকালে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী এম. রেজাউল করিম চৌধুরী এসব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, আমাদের কাছে নগরবাসীর প্রত্যশা অনেক। আমাদের দল এবং নেত্রী জনগণের জন্য দায়বদ্ধতা আছে। এ দায়বদ্ধতা থেকেই আমি মেয়র নির্বাচিত হলে জনগণের কল্যাণে নিবেদিত থাকবো। একটা সংক্রামক করোনা বিধি নিয়ে বিএনপি অপ্রপ্রচার চালাচ্ছে। এটা বিশ্বব্যাপী একটি মহামারী, এটি প্রতিরোধে রাষ্ট্রীয়ভাবে এবং সিটি কর্পোরেশন যথাযথ উদ্যোগ নিয়েছে। তাই আমরা আশা করব, আপনারাও আসুন এক সাথে এ মহামারী প্রতিরোধ করি।


গণসংযোগকালে মহানগর আওয়ামী লীগের আলহাজ নঈম উদ্দীন চৌধুরী বলেন, চট্টগ্রাম নগরীকে একটি আর্ন্তজাতিক নগরীতে পরিণত করার স্বপ্ন বঙ্গবন্ধুর। দলীয় শক্তিকে সুসংহত করে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কাক্ষিত স্বপ্ন বাস্তবায়নে চট্টগ্রামের মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের রাজনৈতিক কর্মীরা সক্রিয়ভাবে ভূমিকা রাখবেন বলে আশা করি।


মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আলহাজ্ব খোরশেদ আলম সুজন বলেন, আমাদের প্রত্যশা হলো চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে নৌকা বিজয় নিশ্চিত করা। এই নৌকা জাতিসত্বার জাগরণের প্রতীক। আমি জানি, বিএনপি কিছু বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে। এই বিএনপির মধ্যে আছে একাত্তরের পরাজিত শক্তির দোসররা। তাদেরকে ব্যালটের মধ্যে নির্মূল করতে হবে।


গণসংযোগকালে অনান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা শেখ মাহমুদ ইসহাক, সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক দিদারুল আলম চৌধুরী, কার্যনির্বাহী সদস্য নুরুল আবছার মিঞা, প্রফেসর নিছার আহমদ মঞ্জু, মহানগর আওয়ামী লীগ নেতা শফিকুল হাসান, জামশেদুল আলম চৌধুরী, মো. ঈসা, আকবরশাহ থানার সভাপতি হাজ্বী সুলতান আহমদ চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক কাজী আলতাফ হোসেন, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ নেতা শওকত ওসমান জাহাঙ্গীর, ৯ নং ওয়ার্ডের এস এম আলমগীর, সরওয়ার মোর্শেদ কচি, জহুরুল আলম জসিম, এরশাদ মামুন, ১০ নং ওয়ার্ডের গিয়াস উদ্দীন জুয়েল, ইকবাল চৌধুরী, হাবিবুর রহমান চৌধুরী, ১২ নং ওয়ার্ডের আলহাজ্ব নুরুল আমিন কালু, মো. শওকত আলী, লুৎফর হক খুশিসহ মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তির স্থানীয় নেতৃবৃন্দ ছাড়াও মহল্লার সর্দার কমিটির নেতৃবৃন্দ, আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতৃবন্দ।

আরো দেখুন

আরও সংবাদ