মোট দেখেছে : 145
প্রসারিত করো ছোট করা পরবর্তীতে পড়ুন ছাপা

জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে থানায় জিডি করলেন আসামি মুছার স্ত্রী

চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া থানায় নিরাপত্তা চেয়ে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন চট্টগ্রামে মাহমুদা খানম মিতু হত্যা মামলার আসামি কামরুল ইসলাম শিকদার মুছার স্ত্রী পান্না আক্তার।

আজ মঙ্গলবার (১ এপ্রিল) দুপুরে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া থানায় তিনি জিডিটি করেন।বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রাঙ্গুনিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুব মিল্কি।

পান্না আক্তার সোমবার আদালতে সাক্ষী দিয়েছেন। তিনি ধারণা করছেন অজ্ঞাত ব্যক্তিরা তার ক্ষতি করতে পারেন। এ কারণে নিরাপত্তা চেয়ে জিডি করেছেন।

সোমবার চট্টগ্রামের মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট হাসান মো. রেজার কাছে পান্না আক্তার ১৬৪ ধারায় সাক্ষী হিসেবে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।মিতু হত্যার সঙ্গে মুছার সংশ্লিষ্টতার বিষয়ে কী

জানেন- এমন প্রশ্নে পান্না গত ১৩ মে বলেন, “আমি তাকে (মুছা) জিজ্ঞেস করেছি, কিন্তু সে কখনো খোলাসা করে কিছু বলেনি। তবে পুলিশ তুলে নিয়ে যাবার আগে একবার ফোনে বলতে শুনেছি.

‘আমি সমস্যায় পড়ে গেছি। আপনার কথায় বিশ্বাস করে কাজ করেছি। আমার পরিবারের কিছু হলে মুখ খুলতে বাধ্য হব স্যার’।

“২০০৩ সাল থেকে আমার স্বামী বাবুল আক্তারের বিশ্বস্ত সোর্স ছিল। বাবুল সাহেবের যত কাজ, প্রায় সব কিছুর পেছনে মুছার ভূমিকা ছিল। বাবুলের সাথে মুছার নিয়মিত যোগাযোগ ছিল।

তিনি বিদেশে গেলেও আমার স্বামীর সাথে যোগাযোগ রাখতেন।”

একসময় সৌদি আরবে থাকা মুছা ২০০২ সালে দেশে ফিরে বালু সরবরাহের ব্যবসা শুরু করেন। তখনই পুলিশের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে তার ‘সখ্য’ গড়ে ওঠে।

২০০৩ সালে পুলিশ কর্মকর্তা বাবুল আক্তারের সঙ্গে পরিচয় হওয়ার পর মুছা তার ‘সোর্স’ হিসেবে কাজ শুরু করে।

পুলিশ মুছাকে ‘পলাতক’ বললেও তার স্ত্রী পান্নার দাবি, ২০১৬ সালের ২২ জুন সকালে বন্দরনগরীর কাঠগড় এলাকার একটি বাসা থেকে তার স্বামীকে ‘পুলিশই’ তুলে নিয়ে যায়।

সেদিনই মুছা ‘আত্মসমর্পণের’ সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন বলেও দাবি পান্নার। 

মিতু হত্যায় তার বাবা সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা মোশাররফ হোসেনের করা হত্যা মামলার প্রধান আসামি পুলিশের সাবেক এসপি বাবুল আক্তার আর তার ‘সোর্স’ হিসেবে পরিচিত কামরুল ইসলাম

শিকদার মুছা। কামরুল ইসলাম শিকদার মুছা এখনো ‘পলাতক’ বলে জানান মিতু হত্যা মামলার তদন্তকারী তদন্তকারী কর্মকর্তা পিবিআই চট্টগ্রাম মেট্রো অঞ্চলের পরিদর্শক ন্তোষ কুমার চাকমা।

আরো দেখুন

আরও সংবাদ